Beta

আফগান ব্যাটসম্যান বললেন

‘মাকে কষ্ট দিতে চাইনি, তাই দ্রুত উঠে দাঁড়িয়েছি’

১৯ জুন ২০১৯, ১৩:৪৬

স্পোর্টস ডেস্ক

ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে ইংল্যান্ড বনাম আফগানিস্তানের খেলা চলছে। স্বাগতিকদের পর্বতপ্রমাণ রান তাড়া করছে আফগানিস্তান। স্ট্রাইকে ছিলেন আফগানিস্তানের হাসমতউল্লাহ শহিদি। ইংরেজ পেসার মার্ক উডের একটি বাউন্সার উড়ে এসে লাগল শহিদির হেলমেটে। মাটিতে লুটিয়ে পড়লেন ব্যাটসম্যান। ঘটনাটি গতকাল মঙ্গলবার চলমান বিশ্বকাপের ২৪তম ম্যাচের।

রয়টার্স জানায়, শহিদি বাউন্সারে আহত হওয়ার পরপরই মাঠে ছুটে আসে আফগান ফিজিও দল। শুশ্রূষা দেওয়ার একপর্যায়ে শহিদিকে খেলা ছেড়ে চলে আসার পরামর্শ দেন ফিজিও। কিন্তু ফিজিওর কথা উপেক্ষা করে তড়িঘড়ি করে উঠে দাঁড়ান শহিদি। ব্যাটিং চালিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেন। শেষ পর্যন্ত আফগানিস্তান ১৫০ রানে হারলেও দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৭৬ রানের ইনিংসটি আসে হাশমতউল্লাহর ব্যাট থেকেই।

কেন ফিজিওর পরামর্শ শুনলেন না? ম্যাচের পর সাংবাদিকদের সে প্রশ্নের জবাবে শহিদি বলেন, ‘মায়ের কথা ভেবেই দ্রুত উঠে দাঁড়াই। গত বছরই বাবাকে হারিয়েছি। তাই মাকে আর কষ্ট দিতে চাইনি।’

২৪ বছর বয়সী এই ব্যাটসম্যান বলেন, ‘আমার গোটা পরিবার খেলা দেখছিল। এমনকি আমার বড় ভাই মাঠে বসে খেলা দেখছিলেন। আমি চাইনি আমার জন্য তাঁরা উদ্বিগ্ন হন।’

“(মেডিকেল স্টাফরা) আমাকে বলছিল, ‘চলো যাই’। আমি ওদের বললাম... আমাকে দলের প্রয়োজন। খেলা চালিয়ে গেলাম। ম্যাচ শেষে আইসিসির চিকিৎসকদের কাছে গেছি, তাঁদের সঙ্গে কথা বলেছি। তাঁরা আমাকে দেখলেন, বললেন, সব ঠিক হয়ে যাবে। ইনশাআল্লাহ তাই হবে,’ যোগ করেন শহিদি।

আফগানিস্তানের পরের ম্যাচ ভারতের বিপক্ষে আগামী শনিবার।

Advertisement