Beta

মানে মানে সরে দাঁড়াক ধোনি, পরোক্ষ বার্তা নির্বাচকদের!

২১ জুলাই ২০১৯, ১৭:০৭

স্পোর্টস ডেস্ক

গতকালই বিষয়টি স্পষ্ট করে দিয়েছেন মহেন্দ্র সিং ধোনি, ক্রিকেট থেকে আপাতত সরে দাঁড়ানোর ইচ্ছে নেই তাঁর। তবে দুই মাস জাতীয় দলের বাইরে থাকবেন। এই সময়ে তিনি আধা সামরিক বাহিনীতে প্রশিক্ষণ নেবেন। ধোনির এই সিদ্ধান্তে সাময়িক জল্পনা থামলেও, প্রশ্ন উঠেছে ধোনি আর কতদিন?

ধোনির পরিবর্তে ঋষভ পন্থকেই যে ভাবছেন নির্বাচকরা, তা স্পষ্ট। তিন ধরনের ফরম্যাটেই রাখা হয়েছে দিল্লির উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যানকে। টেস্টে রয়েছেন বাংলার ঋদ্ধিমান সাহা। বাদ দেওয়া হয়েছে দীনেশ কার্তিককে। নির্বাচকদের এই ঘুঁটি সাজানোতেই স্পষ্ট ধোনি নয়, পরবর্তী বিশ্বকাপের কথা মাথায় রেখে এখন থেকেই ঋষভকে গড়ে পিঠে নিতে চাইছেন।

এদিন দল ঘোষণার পর নির্বাচক প্রধান এম এস কে প্রসাদ জানিয়ে দেন, ‘ধোনি এই সিরিজে থাকছেন না। তবে আমাদের পরবর্তী বিশ্বকাপের কথা মাথায় রেখে নির্দিষ্ট পরিকল্পনা রয়েছে। সেই হিসেবে পন্থকে আমরা যতটা সম্ভব সুযোগ দেওয়ার চেষ্টা করছি। দেখা যাক, কীভাবে ওকে গ্রুম করা যায়।’

পরোক্ষভাবে ধোনির প্রত্যাবর্তন নিয়ে নেতিবাচক বার্তা দিলেও পাশাপাশি প্রসাদ বলেছেন, ‘ধোনি কবে অবসর নেবেন এই বিষয় আমার পক্ষে বলা সম্ভব নয়। এটা পুরোপুরি ধোনির ওপর নির্ভর করছে।’

অন্য নির্বাচকরাও জানিয়েছেন, ধোনির মতো কিংবদন্তি জানেন কখন সরে দাঁড়াতে হবে। তবে তাঁদের পরোক্ষ বার্তা স্পষ্ট, মানে মানে সরে দাঁড়াক ধোনি! কিংবদন্তি কী শুনছেন?

এদিকে ধোনি অবসরের পর রাজনীতিতে যোগ দিতে পারেন, এমন খবর বেশ কিছুদিন ধরেই আলোচনায়। ২২ গজকে বিদায় জানালেই ধোনি বিজেপিতে নাম লেখাতে পারেন, তা নিয়েও খবরের শিরোনাম হচ্ছে। আবার শোনা যাচ্ছে, ভারতের সাবেক অধিনায়ক শুধু বিজেপিতেই যোগ দিচ্ছেন না, ঝাড়খণ্ডের আসন্ন নির্বাচনে নাকি মুখ্যমন্ত্রীর পদে প্রার্থী হতে পারেন।

সম্প্রতি ঝাড়খণ্ডের বিজেপি নেতা সঞ্জয় পাসোয়ান দাবি করেছিলেন, ধোনির সঙ্গে বিজেপির কথাবার্তা চলছে। তিনি বিজেপিতে যোগ দেবেন অবসরের পর।

ঝাড়খণ্ডের বিধানসভা নির্বাচন আরো কিছুদিন পর। শোনা যাচ্ছে, সেই নির্বাচনে নাকি বিজেপি ধোনিকে সামনে রেখে বড় পরিকল্পনা হাতে নিয়েছে। প্রথমে শোনা গিয়েছিল ঝাড়খণ্ডের বিধানসভা নির্বাচনের ধোনিকে বিধায়ক করার। তবে এবার নাকি পরিকল্পনা বদলে সরাসরি ধোনিকে মুখ্যমন্ত্রীর চেয়ারেই বসাতে চাইছে বিজেপি।

Advertisement