Beta

আদালত অমান্য করে কি নির্বাচন করছে শিল্পী সংঘ

২১ জুন ২০১৯, ১২:৩৮ | আপডেট: ২১ জুন ২০১৯, ১২:৪১

বাংলাদেশ অভিনয় শিল্পী সংঘের নির্বাচন স্থগিত করেছেন আদালত। তবে আদালতের এই স্থগিত আদেশ অফিশিয়ালি না পাওয়ায় নির্বাচন আজ সকাল থেকে শুরু হয়েছে।

গতকাল নির্বাচন স্থগিত আদেশের পাশাপাশি এ নির্বাচন কেন বাতিল করা হবে না মর্মে আগামী সাত দিনের মধ্যে কারণ দর্শানোর জন্য সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। ঢাকার দ্বিতীয় সহকারী জজ আদালত গতকাল বৃহস্পতিবার এ আদেশ দেন।

সংগঠনের সভাপতি শহীদুল আলম সাচ্চু বলেন, ‘আমরা আদালত থেকে এমন কোনো আদেশ পাইনি। আমাদের হাতে আদালতের এমন কোনো কাগজ পাইনি, যে কারণে পূর্ব সিদ্ধান্ত অনুযায়ী নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে। সকাল থেকে উৎসবমুখর পরিবেশে সব শিল্পী ভোট দিচ্ছেন।’

এ নির্বাচনের বিরুদ্ধে শিল্পী এহসানুর রহমান বাদী হয়ে ঢাকার দ্বিতীয় সহকারী জজ আদালতে একটি মামলা করেন। বাদীর আবেদনের ওপর শুনানি শেষে আদালত নির্বাচনের ওপর অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞা জারি করেন। অপর এক আদেশে আদালত এ নির্বাচন কেন বাতিল করা হবে না মর্মে আগামী সাত দিনের মধ্যে কারণ দর্শানোর জন্য নির্বাচন কমিশন ও বর্তমান সভাপতি শহীদুল ইসলাম সাচ্চুর প্রতি নির্দেশনা জারি করেন।

অভিনয় শিল্পী সংঘের ২০১৯-২১ মেয়াদ নির্বাচনে মোট ২১টি পদের জন্য লড়াই করছেন ৫১ শিল্পী। ভোটার সংখ্যা প্রায় সাড়ে ছয়শ। আজ রাজধানীর সেগুনবাগিচায় অবস্থিত শিল্পকলা একাডেমিতে সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

এবার নির্বাচনে সভাপতি পদে লড়াই করছেন তিনজন প্রার্থী। তাঁরা হচ্ছেন—শহীদুজ্জামান সেলিম, তুষার খান ও মিজানুর রহমান। সহসভাপতির তিনটি পদের জন্য প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন আজাদ আবুল কালাম, আহসানুল হক মিনু, তানিয়া আহমেদ, ইউজিন ভিনসেন্ট গোমেজ, ইকবাল বাবু ও দিলু মজুমদার।

সাধারণ সম্পাদক পদে লড়াই করছেন আহসান হাবিব নাসিম ও আবদুল হান্নান। এ ছাড়া দুটি যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক পদে নির্বাচন করছেন আশরাফ কবীর, আনিসুর রহমান মিলন, আমিনুল হক আমিন, রওনক হাসান ও সুমনা সোমা।

তবে কোনো প্রতিদ্বন্দ্বী না থাকায় সাংগঠনিক সম্পাদক পদে আগেই নির্বাচিত হয়ে আছেন লুৎফর রহমান জর্জ। 

অর্থ সম্পাদক পদে নূর এ আলম (নয়ন) ও মাঈন উদ্দিন আহমেদ (কোহিনূর), দপ্তর সম্পাদক পদে আরমান পারভেজ মুরাদ, ঊর্মিলা শ্রাবন্তী কর, গোলাম মাহমুদ ও মেরাজুল ইসলাম, অনুষ্ঠান সম্পাদক পদে স্বাগতা, পাভেল ইসলাম ও রাশেদ মামুন অপু, আইন ও কল্যাণ সম্পাদকের পদে শামীমা তুষ্টি, মম শিউলী (মমতাজ বেগম) ও শিরিন আলম, প্রচার ও প্রকাশনা পদের জন্য প্রাণ রায়, শফিউল আলম বাবু ও শহিদ আলমগীর, তথ্যপ্রযুক্তি পদে মুলুক সিরাজ ও সুজাত শিমুল লড়ছিলেন। এ ছাড়া কার্যনির্বাহী সাতটি পদের জন্য লড়াই করছিলেন সংগঠনটির মোট ১৮ জন সদস্য। 

এর আগে ২০১৭ সালের ১০ ফেব্রুয়ারি দেশীয় টেলিভিশন অভিনয়শিল্পীদের নিয়ে অনুষ্ঠিত হয়েছিল এই নির্বাচন। ১৫ ফেব্রুয়ারি হয়েছিল শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠান। এতে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক হিসেবে নির্বাচিত হয়েছিলেন যথাক্রমে শহীদুল আলম সাচ্চু ও আহসান হাবিব নাসিম।

Advertisement