Beta

সাগরপথে মালয়েশিয়া যাওয়ার প্রস্তুতিকালে নারীসহ ১১ রোহিঙ্গা উদ্ধার

০৯ অক্টোবর ২০১৯, ২১:৩১

কক্সবাজারের টেকনাফ সমুদ্র উপকূলে অবৈধভাবে মালয়েশিয়া যাওয়ার প্রস্তুতিকালে আটক ১১ জনের মধ্যে সাত রোহিঙ্গা। ছবি : এনটিভি

কক্সবাজারের টেকনাফ সমুদ্র উপকূলে অবৈধভাবে মালয়েশিয়া যাওয়ার প্রস্তুতির সময় চার নারীসহ ১১ রোহিঙ্গাকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। আজ বুধবার ভোর ৫টার দিকে টেকনাফ উপজেলার বাহারছড়া এলাকা থেকে তাদের উদ্ধার করা হয়েছে। এ সময় দালাল চক্রের সদস্যরা পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে পালিয়ে যায়।

উদ্ধার হওয়া রোহিঙ্গারা হলেন রাফিউল কাদের (২১), ইলিয়াস রিয়াজ (১৬), মোহাম্মদ আইয়ুব (১৮), আমির হাকিম (১৩), মোহাম্মদ ইলিয়াস (২০), ইব্রাহিম (১৭), জানে আলম (৮), আরেছা বিবি (২১), তসলিমা (১৫), হারিদুর ইয়াসমিনা (১৯), জাহেরা (১৭)। তারা সবাই উখিয়ার বিভিন্ন রোহিঙ্গা ক্যাম্পের বাসিন্দা।

বাহারছড়া পুলিশ ফাঁড়ির পরিদর্শক মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন জানান, কক্সবাজার-টেকনাফ মেরিন ড্রাইভের বাহারছড়া এলাকা দিয়ে কিছু রোহিঙ্গা সাগরপথে মালয়েশিয়া যাওয়ার জন্য জড়ো হন। খবর পেয়ে পুলিশের একটি দল সেখানে অভিযান চালান। এ সময় চার নারীসহ ১১ রোহিঙ্গাকে আটক করা হয়।

পুলিশ পরিদর্শক আরো জানান, উদ্ধার হওয়া রোহিঙ্গারা মানবপাচার চক্রের খপ্পরে পড়ে অবৈধভাবে সমুদ্রপথে মালয়েশিয়া যাওয়ার চেষ্টা করছিলেন। পাচারকারী চক্রটি পুনরায় সক্রিয় হওয়ার চেষ্টা করছে। এজন্য তারা রোহিঙ্গাদের টার্গেট করেছে। ওই চক্রকে ধরতে অভিযান চলছে। আটক রোহিঙ্গাদের নিজেদের ক্যাম্পে ফেরত পাঠানো হবে।

ক্যাম্পের রোহিঙ্গা নেতারা জানান, মালয়েশিয়ায় আত্মীয়-স্বজন রয়েছে এমন রোহিঙ্গারা উন্নত জীবনের আশায় ক্যাম্প থেকে বেরিয়ে সমুদ্রপথে দেশটিতে পাড়ি জমানোর চেষ্টা করছে। এসব কর্মকাণ্ডে ক্যাম্পের রোহিঙ্গাদের সঙ্গে স্থানীয় একটি দালালচক্রও জড়িত রয়েছে।

এ প্রসঙ্গে টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. রবিউল হাসান বলেন, ‘হঠাৎ করে একটি দালালচক্র রোহিঙ্গা শিবিরে সক্রিয় হওয়ার চেষ্টা করছে। বেশিরভাগ ক্ষেত্রে নারীদের প্রলোভন দেখিয়ে সমুদ্রপথে মালয়েশিয়া পাচারের চেষ্টা চলছে। তবে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা ওই চক্রকে গ্রেপ্তার ও প্রতিহত করার চেষ্টা অব্যাহত রেখেছে।’

Advertisement