Beta

বিশ্বকাপের আগে সুসংবাদ পেল পাকিস্তান

১৫ মে ২০১৯, ১৪:৩৭

স্পোর্টস ডেস্ক

প্রথম পছন্দের স্পিনার হিসেবে পাকিস্তানের চূড়ান্ত বিশ্বকাপ দলে জায়গা পান শাদাব খান। দারুণ বুদ্ধিদীপ্ত লেগস্পিন বোলিংয়ের পাশাপাশি ওয়ানডে ক্রিকেটে সাত-আট নম্বরে নামা শাদাবের ব্যাটিংটাও বাড়তি উপযোগিতা এনে দেয় দলে। কিন্তু কিছুদিন আগেই মারাত্মক এক দুঃসংবাদ পান ২১ বছর বয়সী এই লেগস্পিনার। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজ খেলতে যাওয়ার আগে দল থেকে ছিটকে যান শাদাব। রক্ত পরীক্ষা করে জানা যায়, হেপাটাইটিস ‘সি’ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন এই স্পিনার। দলের সেরা স্পিনারের হেপাটাইটিসে আক্রান্ত হওয়ার খবরে দুশ্চিন্তায় পড়ে যায় পাকিস্তানের নির্বাচকমণ্ডলী এবং টিম ম্যানেজমেন্ট।

তবে মঙ্গলবার দারুণ এক সুসংবাদ পেয়েছে পাকিস্তান দল। নতুন এক রক্ত পরীক্ষার রিপোর্টে জানা গেছে, হেপাটাইটিস ‘সি’  ভাইরাস থেকে এখন সম্পূর্ণ মুক্ত এই তারকা স্পিনার। সোমবার নতুন করে শাদাবের রক্ত পরীক্ষা করা হয়। গতকাল সেই রিপোর্টের ফল হাতে আসে। রিপোর্ট আসে নেগেটিভ, অর্থাৎ হেপাটাইটিস ‘সি’ ভাইরাসের কোনো নমুনা পাওয়া যায়নি শাদাবের রক্তে। আর এর ফলে বিশ্বকাপের আগে বড় ধরনের দুশ্চিন্তা থেকে পরিত্রাণ মেলে পাকিস্তান দলের। পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি) এক বিবৃতির মাধ্যমে শাদাবের ফিট হওয়ার খবরটি নিশ্চিত করেছে।

বিশ্বকাপ শুরুর আগে দারুণ এই সুসংবাদ পেয়ে উচ্ছ্বসিত শাদাব বলেন, ‘রক্ত পরীক্ষার ফল নেগেটিভ এসেছে জেনে আমি খুবই আনন্দিত। আমি এখন আবার প্রতিযোগিতামূলক ক্রিকেটে ফিরতে পারব। আমার মধ্যে সব সময়ই বিশ্বাসটা ছিল যে, দ্রুতই ভাইরাসের সংক্রমণ থেকে আমি সেরে উঠে বিশ্বকাপে খেলতে পারব আমি।’

আগামী ৩১ মে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে এবারের বিশ্বকাপে নিজেদের প্রথম ম্যাচ খেলবে পাকিস্তান। পিসিবি জানিয়েছে, প্রথম ম্যাচ থেকেই খেলতে পারবেন শাদাব খান। বৃহস্পতিবার লন্ডনের উদ্দেশে যাত্রা করবেন শাদাব। সেখানে গিয়ে ডাক্তার দেখিয়ে আগামী ২০ মে ব্রিস্টলে দলের সঙ্গে যোগ দেবেন তিনি। আগামী ২৪ মে আফগানিস্তান ও ২৬ মে বাংলাদেশের বিপক্ষে বিশ্বকাপের দুটি প্রস্তুতি ম্যাচ আছে পাকিস্তানের। পুরো ফিট থাকলে এবং টিম ম্যানেজমেন্ট চাইলে ম্যাচ দুটোতে মাঠে নামার সম্ভাবনা রয়েছে তাঁর।  

পাকিস্তানের হয়ে এখন পর্যন্ত ৩৪টি ওয়ানডে ম্যাচ খেলেছেন শাদাব খান। ডানহাতি লেগস্পিন বোলিংয়ে মোট ৩৩ উইকেট নিয়েছেন ২৭.৭৪ গড়ে। পাশাপাশি ব্যাট হাতে তিনটি অর্ধশতকসহ ২৯.৪০ গড়ে রান করেছেন শেষদিকে নেমে। ব্যাটিং-বোলিং ছাড়াও দুর্দান্ত ফিল্ডিং করতে অভ্যস্ত এই ক্রিকেটারকে বিবেচনা করা হয় পাকিস্তানের সাম্প্রতিক সময়ের সেরা ফিল্ডার হিসেবে। ২০১৭ সালে ইংল্যান্ডে অনুষ্ঠিত চ্যাম্পিয়নস ট্রফি জেতা পাকিস্তান দলের গুরুত্বপূর্ণ সদস্য ছিলেন ডানহাতি এই স্পিনার।   

Advertisement