Beta

জিতেও অতৃপ্ত উসাইন বোল্ট

২০ এপ্রিল ২০১৫, ১৫:৫৭

স্পোর্টস ডেস্ক
ব্রাজিলের রিও ডি জানেইরোতে ‘মানো ও মানো’ প্রতিযোগিতায় ১০০ মিটার স্প্রিন্ট জিতে দর্শকদের অভিবাদনের জবাব দিচ্ছেন বিশ্বের দ্রুততম মানব উসাইন বোল্ট। ছবি : এএফপি

এ মৌসুমে প্রথমবারের মতো ১০০ মিটার স্প্রিন্টে নেমে জয় তুলে নিলেও নিজের পারফরম্যান্সে ঠিক সন্তুষ্ট নন উসাইন বোল্ট। শুরুটা ভালো না হওয়ায় বিশ্বের দ্রুততম মানব বেশ চিন্তিত।

আগামী বছর ব্রাজিলের রিও ডি জানেইরোতে বসবে অলিম্পিকের আসর। বিশ্বের সবচেয়ে বড় ক্রীড়াযজ্ঞে নিঃসন্দেহে পাদপ্রদীপের আলো থাকবে তাঁর ওপর। বাংলাদেশ সময় রোববার রাতে রিওর ‘মানো ও মানো’ নামের প্রতিযোগিতায়ও আকর্ষণের কেন্দ্রবিন্দুতে ছিলেন বোল্ট।

শুরুটা ধীরে হওয়ায় ৭০ মিটার পর্যন্ত রায়ান বেইলির চেয়ে পিছিয়ে থাকলেও শেষ ৩০ মিটারের ‘বোল্ট-ম্যাজিকে’ শেষ পর্যন্ত জ্যামাইকার গতি-তারকাই বিজয়ীর মঞ্চে। ফিনিশিং লাইন পেরোতে বোল্টের লেগেছে ১০.১২ সেকেন্ড। ০.১২ সেকেন্ড বেশি নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের বেইলির অবস্থান দ্বিতীয়।

৯.৫৮ সেকেন্ডের অবিশ্বাস্য টাইমিংয়ে বিশ্ব রেকর্ড যাঁর পদতলে, তাঁর কী এই জয়ে মন ভরে? ছয়টি অলিম্পিক স্বর্ণজয়ী বোল্ট তাই এই পারফরম্যান্সে একটুও সন্তুষ্ট নন, ‘আমার মনে হচ্ছে এটা ভীষণ দুর্বল পারফরম্যান্স। আমি নিশ্চিত, আমার কোচ এটা নিয়ে একটুও খুশি হবেন না। শুরুটা একদমই ভালো হয়নি। আর তারই মূল্য দিতে হয়েছে আমাকে। একটাই শুধু ভালো ব্যাপার, আমি জিতেছি।’

অবশ্য মৌসুমের প্রথম ১০০ মিটার দৌড় বলে নিজেকে কিছুটা ‘ছাড়’ দিচ্ছেন বোল্ট, ‘নিজের সেরাটা ফিরে পেতে আরো কিছু সময় প্রয়োজন আমার। আমাকে তাই শুধু আরো কয়েকটি প্রতিযোগিতায় দৌড়াতে হবে। আশা করি তাহলেই সব ঠিক হয়ে যাবে।’

বোল্টের পরবর্তী ‘মিশন’ বিশ্ব রিলে। আগামী ২-৩ মে আটলান্টিক মহাসাগরের দ্বীপপুঞ্জ বাহামাতে হবে এই প্রতিযোগিতা। 

Advertisement