Beta

ভৈরবে গরিব ও অসহায় রোগীদের বিনামূল্যে চিকিৎসা

২০ জুলাই ২০১৯, ২৩:২৩

কিশোরগঞ্জের ভৈরব শহরের কমলপুর আমলাপাড়া মোড়ে অ্যাকটিভ ফিজিওথেরাপি সেন্টারে বিনামূল্যে চিকিৎসা ক্যাম্পের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন ইউএনও ইসরাত সাদমীন। ছবি : এনটিভি

কিশোরগঞ্জের ভৈরবে গরিব ও অসহায় রোগীদের সাহায্যার্থে বিনামূল্যে চিকিৎসা ক্যাম্প অনুষ্ঠিত হয়েছে। অ্যাকটিভ লাইফ ফিজিওথেরাপি সেন্টারের সহযোগিতায় বেসরকারি সংস্থা সাদ বাংলাদেশ দিনব্যাপী ওই চিকিৎসা ক্যাম্পের আয়োজন করে।

শহরের কমলপুর আমলাপাড়া মোড়ে অ্যাকটিভ ফিজিওথেরাপি সেন্টারে অনুষ্ঠিত বিনামূল্যে চিকিৎসা ক্যাম্পে দুই শতাধিক রোগীকে চিকিৎসা পরামর্শসহ ফিজিওথেরাপি দেওয়া হয়।

শনিবার সকালে আলোচনা সভার মাধ্যমে ওই বিনামূল্যে চিকিৎসা ক্যাম্পের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ইসরাত সাদমীন। এ সময় ভৈরব প্রেসক্লাবের সভাপতি মো. জাকির হোসেন কাজলের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন তিনি।

ইউএনও তাঁর বক্তব্যে বলেন, চিকিৎসা একটি সেবামূলক পেশা। কিন্তু কিছু অতিলোভী ব্যক্তির কারণে সেটি আজ বিতর্কিত। মানুষের আস্থায় ফাটল ধরিয়েছে। সেবার নামে ওই চক্রটি মানুষের জীবন নিয়ে নিকৃষ্ট খেলায় মেতেছে। এই অবস্থা বেশি দিন চলমান থাকতে পারে না। তিনি এ সময় স্থানীয় স্বাস্থ্য বিভাগকে এখানকার চিকিৎসা ব্যবস্থাকে নজরদারীর মধ্যে এনে ঢেলে সাজানোর আহ্বান জানান।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. বুলবুল আহমেদ বলেন, ভৈরবের চিকিৎসাসেবা কেন্দ্রগুলোর শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনতে উচ্চমহলের নির্দেশে সেগুলো আমরা পরিদর্শন করছি। চিকিৎসকসহ প্রয়োজনীয় নথিপত্র খতিয়ে দেখছি। ইতিমধ্যে একটি হাসপাতালে রোগী মৃত্যুর ঘটনাটি খুবই দুঃখজনক। এই মৃত্যুর ঘটনাকে কেন্দ্র করে স্থানীয়ভাবে স্বাস্থ্য কেন্দ্রগুলোর ওপর মানুষের যে অনাস্থা তৈরি হয়েছে, সেটি যেকোনো মূল্যেই হোক আমাদের ফিরিয়ে আনতে হবে।

বিশেষ অতিথি ডা. মনিরুল হক তাঁর বক্তব্যে বলেন, ফিজিওথেরাপি এমন একটি চিকিৎসা সেবা পদ্ধতি; যেখানে ওষুধের ওপর নির্ভরতা কমিয়ে রোগীকে সুস্থ করে তোলা হয়। সরকার অনুমোদিত ফিজিওথেরাপি কেন্দ্রগুলো থেকে প্রশিক্ষিত ফিজিওথেরাপিস্টরা যদি স্থানীয়ভাবে চিকিৎসাসেবা দেন, তবে লোকজন সঠিক ও ভালো সেবাটা পেয়ে উপকৃত হবেন। তিনি এই ক্ষেত্রে স্থানীয় স্বাস্থ্য বিভাগের নজরদারী প্রত্যাশা করেন।

সভাপতির বক্তব্যে প্রেসক্লাব সভাপতি মো. জাকির হোসেন কাজল জনকল্যাণমূলক এমন একটি উদ্যোগ গ্রহণের জন্য সাদ বাংলাদেশের কর্মকর্তাদের ধন্যবাদ জানান। কৃতজ্ঞতা জানান বিনামূল্যে চিকিৎসা ক্যাম্পের তিন বিশিষ্ট চিকিৎসক ডা. মনিরুল হক, ডা. ইমরান ইসলাম সুমন ও ডা. তামান্না মীর লাকীকে।

এ সময় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন ডা. ইমরান ইসলাম সুমন, ডা. তামান্না মীর লাকী, সাদ বাংলাদেশের সমন্বয়কারী (প্রোগ্রাম) মো. নজরুল ইসলাম মানিক চৌধুরী ও প্রধান নির্বাহী এম. মতিউর রহমান সাগর।

আলোচনা শেষে অতিথিরা বিনামূল্যে চিকিৎসা ক্যাম্প পরিদর্শন। এ সময় তাঁরা চিকিৎসাসেবা নিতে আসা রোগীদের সঙ্গে কথা বলেন ও খোঁজ-খবর নেন।

Advertisement