Beta

বিশ্বকাপের আগে আইপিএলের লড়াইয়ে তারকারা

২৩ মার্চ ২০১৯, ১৫:৫৮

স্পোর্টস ডেস্ক

আগামী মে মাসে শুরু হচ্চে বিশ্বকাপ ক্রিকেট। তার আগে ছোট ফরম্যাটে উত্তেজনাপূর্ণ ও শ্বাসরুদ্ধকর লড়াইয়ে শামিল হওয়ার সুযোগ পাচ্ছে বিশ্ব ক্রিকেটের মহাতারকারা। ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের (আইপিএল) লড়াইয়ে নামবেন বিশ্বখ্যাত তারকারা। যা ক্রিকেটের সবচেয়ে জনপ্রিয় ফ্র্যাঞ্চাইজিক আসর।

আজ শনিবার চেন্নাইয়ে শুরু হচ্ছে আইপিএলের দ্বাদশ আসর। উদ্বোধনী দিনে মুখোমুখি হচ্ছে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন মহেন্দ্র সিং ধোনির দল চেন্নাই সুপার কিংস ও বিরাট কোহলির রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরু। খেলাটি শুরু হবে বাংলাদেশ সময় রাত সাড়ে ৮টায়।

২০০৮ সালে প্রথম মাঠে গড়ায় আইপিএল। প্রথম আসরেই জনপ্রিয় হয়ে ওঠে টুর্নামেন্টটি। পরের আসরের গিয়ে যার জনপ্রিয়তা হয়ে ওঠে আকাশ ছোয়া। তাই আইপিএলের দেখাদেখি বিভিন্ন দেশেও শুরু হয়ে যায় ফ্র্যাঞ্চাইজিক ভিত্তিক টি-টোয়েন্টি লিগ। তবে সময় গড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে নিজেদের জনপ্রিয়তা বাড়াতে থাকে আইপিএল।

আইপিএলের দ্বাদশ আসরের গুরুত্বটা এবার একটু বেশি। কারণ দুই মাস পরই ওয়ানডেতে শ্রেষ্ঠত্বের মুকুট পড়ার জন্য ব্যাট-বলের লড়াইয়ে নামবে ১০টি দেশ। ওয়ানডে বিশ্বকাপের আগে এই ফরম্যাট বেশ সহায়ক হবে মনে করেন অনেক বাঘা-বাঘা খেলোয়াড়রা। ভারতের ওপেনার ও মুম্বাই দলের অধিনায়ক বলেন, ‘বিশ্বকাপের আগ মুহূর্তে এমন টুর্নামেন্ট, সবার পারফরমেন্সে উন্নতি করবে। নিজেকে নিয়ে আরো বেশি কাজ করার সুযোগ পাবে।’

কলকাতা নাইট রাইডার্সের অধিনায়ক দিনেশ কার্তিকও একই সুরে কথা বললেন, ‘এবারের আইপিএলের গুরুত্বপূর্ণ অনেক বেশি। কারণ সামনেই বিশ্বকাপ। এবারের আসরটি সব খেলোয়াড়ই গুরুত্বসহকারে দেখছে।’

বিদেশি খেলোয়াড়দের মধ্যে সানরাইজার্স হায়দরাবাদের নিউজিল্যান্ডের খেলোয়াড় ও অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন বলেন, ‘ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি খুব বেশি মিল নেই। তবে টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট মানসিকতায় পরিবর্তন আনে। দ্রুত রান তোলা ও দ্রুত সিদ্বান্ত নেওয়ার সাহস দেয়। যা ওয়ানডেতে সহায়ক ভূমিকা রাখে।’

বিশ্বকাপের আগে এই দেড় মাসের টুর্নামেন্ট নিয়ে চিন্তার ভাঁজও রয়েছে খেলোয়াড়দের। ইনজুরিতে পড়ে যাওয়ার শংকায় সব ম্যাচ না খেলার ইচ্ছেও রয়েছে তাদের। পাশাপাশি সাবধনতা অবলম্বনের চিন্তাও থাকছে লোকাল ও বিদেশি খেলোয়াড়দের। এ ব্যাপারে ভারতের পেসার ভুভনেশ্বর কুমার বলেন, ‘এবারের আসরে সব ম্যাচ খেলব না। নিজেকে ফিট রাখতে বেছে বেছে ম্যাচ খেলার সিদ্বান্ত রয়েছে আমরা। আমার মনে হয়, আরও অনেকেই তাই-ই করবে।’

এদিকে চেন্নাই-বেঙ্গালুরু ম্যাচ দিয়ে মাঠে গড়াবে আইপিএলের দ্বাদশ আসর। দুই বছর নির্বাসনে থাকার পর গেল আসরে আইপিএলে ফিরে ধোনির চেন্নাই। ফিরেই চমক দেখিয়েছে। আইপিএলের শিরোপা জিতে নেয় তারা। হায়দরাবাদকে হারিয়ে শিরোপা জিতে নেয় চেন্নাই। মুম্বাইয়ের সাথে সর্বোচ্চ তিনবার শিরোপা জিতেছে চেন্নাই। ২০১০ ও ২০১১ সালে শিরোপা জয় করে চেন্নাই। এবারও শিরোপা জয়ের পথে অনেকাংশে এগিয়ে চেন্নাই।

শেন ওয়াটসন, ডেভিড মিলার, ফাফ ডু-প্লেসিস, ডোয়াইন ব্রাভোর সাথে স্থানীয় সুরেশ রায়না-রবীন্দ্র জাদেজা-কেদার যাদব-আম্বাতি রাইদু-হরভজন সিংদের নিয়ে গড়া দলটি যেকোনো প্রতিপক্ষের জন্য হুমকি। সাথে থাকছে ক্যাপ্টেন কুল ধোনির নেতৃত্ব। এবারও নিজেদের সেরাটা দেওয়ার হুমকি দিয়ে রাখলেন ধোনি। তিনি বলেন, ‘আমাদের লক্ষ্য শিরোপা ধরে রাখা। শিরোপা জয় ছাড়া অন্য কিছুই ভাবার উপায় নেই। আমাদের এবারের দলটিও বেশ ভারসাম্যপূর্ণ।’

আইপিএলে বড় কোনো সাফল্য নেই ব্যাঙ্গালুরুর। তিনবার ফাইনালে উঠেও শিরোপায় হাত দিতে পারেনি তারা। শক্তিশালী দল গঠন করেও সেরার মুকুট পড়া হয়নি তাদের। তবে এবার বিশ্বকাপের আগে আইপিএলে সাফল্য নিয়ে খুব বেশি চিন্তিত নন ব্যাঙ্গালুরুর অধিনায়ক বিরাট কোহলি। নিজ দেশের খেলোয়াড়রা ভালো পারফর্ম করুক, এমনই চান কোহলি, ‘বিশ্বকাপের আগে এখানে সাফল্য পেলে ব্যাপারটা দারুণ হবে। তবে কাজটি অনেক কঠিন এবং আমি এই আসর নিয়ে বড় কোনো স্বপ্ন দেখছি না। আমি চাইছি আমাদের স্থানীয় খেলোয়াড়রা ভালো পারফরমেন্স করুক। যাতে বিশ্বকাপে আমরা আত্মবিশ্বাসী হয়েই যেতে পারি।’

Advertisement