Beta

সর্দি-কাশিতে শিশুর নাক বন্ধ : কী করবেন?

০৪ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ২৩:১৬

ফিচার ডেস্ক
সর্দি-কাশিতে শিশুর নাক বন্ধ হয়ে গেলে করণীয় বিষয়ে কথা বলেছেন ডা. আবু তালহা। ছবি : এনটিভি

সর্দি-কাশি হলে নাক বন্ধ হয়ে যাওয়া সাধারণ সমস্যা। তবে এই সাধারণ সমস্যাটি বেশ অস্বস্তির কারণ হয়ে দাঁড়ায়। বিশেষ করে শিশুদের বেলায়।

সর্দি-কাশি হয়ে শিশুদের নাক বন্ধ হলে করণীয় কী,এ বিষয়ে এনটিভির নিয়মিত আয়োজন স্বাস্থ্য প্রতিদিন অনুষ্ঠানে কথা বলেছেন ডা. আবু তালহা। বর্তমানে তিনি বাংলাদেশ স্পেশালাইজড হসপিটালে শিশু বিভাগের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক হিসেবে কর্মরত। এনটিভির নিয়মিত আয়োজন স্বাস্থ্য প্রতিদিন অনুষ্ঠানের ৩৫৩৫তম পর্বে সাক্ষাৎকারটি প্রচারিত হয়।

প্রশ্ন : শিশুর সর্দি-কাশিতে কী ধরনের চিকিৎসা দেওয়া হয়?

উত্তর : আপনি যদি দেখেন, শিশুর সর্দি-কাশি রয়েছে, নাক দিয়ে পানি পড়ছে, কিন্তু বাচ্চার জ্বর অত বেশি নয়, তাহলে আমার মনে হয় অত বেশি বিচলিত হওয়ার দরকার নেই। বাসাতেই আপনি কিছু ব্যবস্থাপনা করতে পারেন। বাচ্চার নাকটা হয়তো অপরিষ্কার রয়েছে। তাহলে আমার মনে হয়, আপনার অত বেশি বিচলিত হওয়ার দরকার নেই, বাসাতেই কিছু করতে পারেন। বাজারে কিছু স্যালাইন পাওয়া যায়, নরমাল স্যালাইন অথবা হাইপারটনিক স্যালাইন, যেটা তিন ভাগ সোডিয়াম ক্লোরাইড, সেটি কিন্তু বাজারে কিনতে পাওয়া যায়। এটি দিয়ে আপনি নাকটা পরিষ্কার করে নেবেন।

তবে অনেক সময় দেখা যায়, নরসল বা পানি আমরা যেটি চিকিৎসাপত্রে দেই, সেটি তারা দুই নাকে একসঙ্গে দিয়ে দেয়। যদি দুই নাকে নরসল এক ফোঁটা করে দেন, তাহলে দুটো নাক বন্ধ হয়ে গেল। সেই ক্ষেত্রে পরামর্শ এক নাকে আমি এক ফোঁটা/ দুই ফোঁটা স্যালাইন দিয়ে দিলাম এটি পরিষ্কার হয়ে গেল। পরিষ্কার করার পর ১০ থেকে ১৫ মিনিট পর আরেক নাকে আমি দুই ফোঁটা নরসল দিলাম। এতে দেখা যায়, দুই নাক দিয়ে সে কিন্তু নিশ্বাস নিতে পারছে। সঙ্গে আমরা বলব, এই বাচ্চাগুলোকে হালকা কুসুম গরম পানি দিয়ে নিয়মিত গোসল করাতে হবে। সঙ্গে একটু লেবুর রস হালকা কুসুম গরম পানি দিয়ে খেতে দিলেন অথবা তুলসি পাতার রস খাওয়াতে পারেন যদি বাচ্চার বয়স ছয় মাসের ওপরে হয়। এতে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়বে। ভাইরাসজনিত ব্রঙ্কিওলাইটিস হলে এটি দ্রুত ভালো হয়ে যায়।

Advertisement