Beta

অনিয়মিত ঋতুস্রাব : করণীয়

০১ মে ২০১৮, ১৬:০৮

ডা. সজল আশফাক
ঋতুস্রাব অনিয়মিত হলে চিকিৎসকের পরামর্শ নিন। ছবি : সংগৃহীত

নিয়মিত ঋতুস্রাব হলে তা সাধারণত তিন থেকে পাঁচদিন থাকে এবং ২৮ দিন পরপর হয়। কারো কারো ক্ষেত্রে এক/ দুই দিন এদিক সেদিক হতে পারে, তবুও তা নিয়মিত ঋতুস্রাবের মধ্যেই পড়ে। 

তবে এ নিয়মের খুব বেশি হেরফের হলে যেমন, একবার ঋতুস্রাব হওয়ার পর যদি দুই থেকে তিন মাস আর ঋতুস্রাব না হয়, আবার একবার শুরু হয়ে অনেকদিন চলে আবার ১০ থেকে ১৫ দিন পরপর ঋতুস্রাব হয়, এমন হলে তাকে অনিয়মিত ঋতুস্রাব বলে। 

এই অনিয়মিত ঋতুস্রাব সাধারণত রক্তশূন্যতা, হরমোনের অভাব, জরায়ু বা ডিম্বোকোষের রোগ, অপুষ্টি, গনোরিয়া, সিফিলিস ইত্যাদি বিভিন্ন কারণে হতে পারে। 

কী করবেন?
• রক্তশূন্যতা ও পুষ্টিহীনতা যদি কারণ হয়ে থাকে সেই ক্ষেত্রে পুষ্টিকর খাবার আয়রন ট্যাবলেট ও ভিটামিন বি খেতে হবে। 

• হরমোনের অভাবে ঋতুস্রাব অনিয়মিত হলে প্রিমুলাট – এ (পাঁচ মিলিগ্রাম) একটি করে দিনে তিনবার ঋতুস্রাবের ১১তম দিন থেকে শুরু করে মোট ১৮তম দিন পর্যন্ত খেতে হবে। এভাবে মোট তিনটি ঋতুস্রাব চক্র খেতে হবে। এ ছাড়া যেসব জন্ম বিরতিকরণ হরমোন পিল রয়েছে, কাছের ডাক্তারের সঙ্গে পরামর্শ করে সেগুলোও খেতে পারেন। 

• গণোরিয়া, সিফিলিস জাতীয় যৌনরোগ থাকলে সেগুলোর চিকিৎসা করতে হবে। 

• আর এসব করেও যদি ঋতুস্রাব নিয়মিত না হয়, তাহলে অবশ্যই একজন স্ত্রী রোগ বিশেষজ্ঞকে দেখাতে হবে। 

কী করবেন না
• ঋতুস্রাব সমস্যা নিয়ে লজ্জায় ডাক্তারের কাছে না গিয়ে ঘরে বসে থাকবেন না। 

• কোনো প্রকার টোট্কা করবেন না। 

• কোনো সুযোগ্য ডাক্তারের পরামর্শ না নিয়ে, নিজের বুদ্ধিতে আন্দাজেই কোনো ওষুধ খাবেন না।  

লেখক : সহযোগী অধ্যাপক, হলিফ্যামিলি রেড ক্রিসেন্ট মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল 
 

ইউটিউবে এনটিভির জনপ্রিয় সব নাটক দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Advertisement