Beta

কোন ধরনের ঘাড়ব্যথায় অ্যান্ডোস্কোপিক সার্জারি করা হয়?

২৩ মে ২০১৯, ২১:০০ | আপডেট: ২৩ মে ২০১৯, ২১:০৩

ফিচার ডেস্ক
অ্যান্ডোস্কোপিক সার্জারির বিভিন্ন বিষয়ে কথা বলেছেন ডা. নুরুজ্জামান খান। ছবি : এনটিভি

অ্যান্ডোস্কোপি একটি আধুনিক সার্জারি। সাধারণত ঘাড়ের ডিস্কের সমস্যায় এই সার্জারি করা হয়। এ বিষয়ে এনটিভির নিয়মিত আয়োজন স্বাস্থ্য প্রতিদিন অনুষ্ঠানের ৩৪৪৪তম পর্বে কথা বলেছেন ডা. নুরুজ্জামান খান। বর্তমানে তিনি শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে নিউরোসার্জারি বিভাগে সহকারী অধ্যাপক হিসেবে কর্মরত।

প্রশ্ন :  ঘাড়ের ব্যথায় সার্জারি যদি লাগে, তাহলে অ্যান্ডোস্কোপিক সার্জারির সুযোগটা কতটুকু? এর সুবিধাটা কী?

উত্তর : অ্যান্ডোস্কোপিক সার্জারি হলো, একটি মিনিমাল ইনভেসিভ সার্জারি। কারণ, আমরা আগেই জানতাম যে পিত্তথলির অস্ত্রোপচার। এটি সম্পর্কে আমরা অনেকেই জানি। বড় করে কেটে পিত্তথলির অস্ত্রোপচার করা হয়, কিন্তু এখন দেখা যাচ্ছে, একটু ফুটো করেই পিত্তথলির পাথরটা বের করে নেওয়া সম্ভব হচ্ছে। রোগী একদিনের ভেতর হাসপাতাল থেকে বাসায় চলে যেতে পারে। ঠিক একইভাবে আমরা মেরুদণ্ডে অ্যান্ডোস্কোপি বা মিনিমাল ইনভেসিভ সার্জারি করছি।

এখানে সবচেয়ে প্রচলিতভাবে যেটি করা হয়, ঘাড় ব্যথায়, সেটি হলো ডিস্কের সমস্যার জন্য। ঘাড়ের যে ডিস্কের সমস্যা রয়েছে, এর জন্য আমরা অ্যান্ডোস্কোপিক সার্জারি করি।

ঘাড়ের দুই রকম সমস্যা হতে পারে। মেরুদণ্ড বা স্নায়ুরজ্জুকে যদি চাপ দেয়, মাইলোপ্যাথি যদি তৈরি হয়, এর জন্য আমরা সামনে দিয়ে ছোট্ট একটি অস্ত্রোপচার করি। অ্যান্ডোস্কোপের মাধ্যমে আমরা সেখান থেকে ডিস্কটা ছড়িয়ে খুব ছোট একটি ইনসিশন দেই, এক থেকে দেড় সেন্টিমিটারের মতো দিয়ে ওখান থেকে বের করে ডিস্কটা সরিয়ে সেখানে কৃত্রিম ডিস্ক, অথবা কিছু ইমপ্ল্যান্ট দিয়ে ওটাকে যুক্ত করে দেই। একে এসিডিএফ বলে।

দ্বিতীয় হলো, যদি দেখা যায়, তার সমস্যাটা শুধু হাতের দিকে আসছে, পায়ের দিকে কোনো সমস্যা যাচ্ছে না বা মেরুদণ্ডকে সমন্বয় করছে না, একটি পাশে সমস্যা করছে, তখন সামনে দিয়েও যাওয়া লাগে না, পিছন দিক দিয়ে আমরা অ্যান্ডোস্কোপির মাধ্যমে আট বা নয় মিলিমিটার ছিদ্র করে সমস্যাকে সমাধান করতে পারছি। অস্ত্রোপচারের পরের দিন সে বাসায় চলে যেতে পারে। কোনো রকম বড় ধরনের কাটাছেঁড়া নেই,  ঝুঁকি নেই।

Advertisement